Categories
জাতীয়

দেশে থেকে টাকা নিয়ে টিকিট কাটতে হচ্ছে প্রবাসীদের

কো’ভিড-১৯ এর প্রবাসী বিশ্বজুড়ে চলছে না’জুক অবস্থা। কাজ নেই অধিকাংশ মানুষের। অনেক প্রবাসী দেশে এসে আ’টকে পড়েছে আবার অনেকে দেশে ফিরতে পারছে না।কাজ না থাকার কারণে আ’র্থিকভাবেও খা’রাপ অবস্থার মধ্যে আছে প্রবাসীরা।

 

কো’ভিড-১৯ এর প্রভাবে ফ্লাইট ব’ন্ধ থাকায় বাংলাদেশে আ’টকা পড়েছেন হাজার হাজার আমিরাত প্রবাসী বাংলাদেশি। অন্যদিকে ক’রোনার কারণে কাজ হা’রিয়ে দেশে যাওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে অসংখ্য বাংলাদেশি। আবার কেউ কেউ অ’সুস্থ থাকায় দেশে চলে যেতে চাচ্ছে।

 

প্রায় ৩ মাস ধরে সংযুক্ত আরব আমিরাতের সাথে বাংলাদেশের স্বাভাবিক ফ্লাইট ব’ন্ধ রয়েছে। বিশেষ ফ্লাইটে কিছু সংখ্যক লোক দুবাই থেকে ঢাকা যাচ্ছেন, ঢাকা থেকে দুবাইআসছেন। মূলত যারা সংযুক্ত আরব আমিরাত সরকারের অনুমতি পেয়েছেন তারাই এখন আসতে যেতে পারছেন।

প্রবাসীদের আনা নেওয়ার জন্য বর্তমানে চালু হওয়া বিশেষ ফ্লাইটে আ’টকেপড়া বাংলাদেশিরা চ’ড়া দামে টিকিট ক্রয় করে দেশে ফেরত যাচ্ছেন। এই স্পেশাল ফ্লাইটের মা’ত্রাতিরিক্ত টিকিটের মূল্য নিয়েও প্রবাসী বাংলাদেশের মধ্যে চা’পা ক্ষো’ভ বিরাজ করছে। কো’ভিড-১৯ বিপ’র্যয়ে বিমান ভাড়ার ভারে দি’শেহারা প্রবাসী বাংলাদেশিরা। স্বাভাবিক ফ্লাইট চালু হলে টিকিটের মা’ত্রাতিরিক্ত দাম কমবে বলে মনে করছেন প্রবাসীরা।

 

জুলাই মাসের ৬ তারিখ থেকে বাংলাদেশ বিমানের ফ্লাইট চালু হওয়ার কথা থাকলেও তা হয়নি। আগামী ১৩ জুলাই থেকে সংযুক্ত আরব আমিরাত রুটে বিমান ফের পরিচালনার সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু এসব ফ্লাইটের ভাড়া স্পেশাল ফ্লাইটের মতো।

 

উপসাগরীয় এই দেশের বাণিজ্যিক রাজধানী দুবাই থেকে যাওয়ার ভাড়াই ২ হাজার দিরহামের (৪৩ হাজার টাকা) অধিক। হাজার দিরহামের বেতনের সাধারণ প্রবাসী শ্রমিকরা কিভাবে শুধুমাত্র যাওয়ার ভাড়া ২ হাজার দিরহাম বহন করবে? তাছাড়া বর্তমান এই বৈশ্বিক ম’হামারির দুঃ’সময়ে ক’র্মহীন হয়ে পড়েছেন অসংখ্য প্রবাসী বাংলাদেশি।

বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার মোহাম্মদ আইয়ুব আলী কোম্পানি থেকে চাকরি হা’রিয়েছেন প্রায় এক মাস আগে। টিকিটের চ’ড়া মূল্যের কারণে বাংলাদেশে যেতে পারছেন না তিনি, আবার ক’র্মহীন অবস্থায় এখানে থাকাটাও তার জন্য ক’ঠিন হয়ে পড়েছে। এ অবস্থায় তিনি বাংলাদেশ থেকে টাকা এনে ২২০০ দিরহাম (প্রায় ৪৮ হাজার টাকা) দিয়ে টিকিট কেটে বিশেষ ফ্লাইটে দেশে যান।

 

ফেনী জেলার রুবেল মিয়া নামে এক প্রবাসী ২ হাজার দিরহাম দিয়ে টিকিট কেটে ছুটিতে দেশে যান। রুবেলের কোম্পানিতে বর্তমানে কাজ নেই তাই ছুটি দিয়েছে। এভাবে অসংখ্য প্রবাসী টিকিটের মা’ত্রাতিরিক্ত ভাড়ার কারণে চ’রম বি’পাকে আছেন।

 

কো’ভিড-১৯ এ সবচেয়ে বেশি ক্ষ’তি’গ্র’স্থ হয়েছে প্রবাসীরা ও তাদের পরিবার। প্রবাসীদের এই দুঃ’সময়ে বাংলাদেশ সরকার প্রবাসীদের পাশে দাঁড়াবে এটাই প্রত্যাশা। বিমান ভাড়ায় ভ’র্তুকি দিয়ে হলেও স্থি’তিশীল করার দাবি লাখো প্রবাসী বাংলাদেশির।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *