Categories
জাতীয়

অভিভাবক হিসেবে বাংলাদেশী প্রবাসীদের দেখাশুনা করার দায়িত্ব আমার: মদিনার গভর্নর

সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূতের সঙ্গে বৈঠকে অভিবাসীদের প্রশংসা করলেন মদিনার গভর্নর। মঙ্গলবার, সৌদি আরবে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম (বার) মদিনার গভর্নর প্রিন্স ফয়সাল বিন সালমান এর সাথে বৈঠকে করেন। বৈঠককালে মদিনার গভর্নর বাংলাদেশী অভিবাসীদের দক্ষতা ও সততার জন্য তাঁদের প্রশংসা করেন।

 

বৈঠককালে সৌদি গভর্নর বলেন, বাংলাদেশী অভিবাসীরা সৌদি আরবের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে। অভিভাবক হিসেবে বাংলাদেশী অভিবাসীদের দেখাশুনা করা তাঁর দায়িত্ব বলে গভর্নর উল্লেখ করেন।

 

গভর্নর প্রিন্স ফয়সাল বিন সালমান আরও বলেন, মদিনায় অভিবাসি শ্রমিকদের জন্য কোম্পানির অর্থায়নে আধুনিক সুযোগ সুবিধা সম্পন্ন আবাসিক কম্পাউন্ড তৈরি করা হচ্ছে, যেখানে সুন্দর পরিবেশের পাশাপাশি উন্নত মানের খাবার ও বিনোদনের ব্যবস্থাও থাকবে।

বাংলাদেশী অভিবাসি শ্রমিকরা পরিবার পরিজন ছেড়ে দূর পরবাসে বসবাস করছে তাঁদের এ ত্যাগের কথা উল্লেখ করে গভর্নর বলেন, সৌদি আরবে তাঁদের অবস্থানকে আরো সহজ ও আরামদায়ক করার বিষয়ে তিনি আন্তরিকভাবে চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তিনি বাংলাদেশের সাথে সৌদি আরবের ঘনিষ্ঠ ভাতৃত্বপূর্ন সম্পর্কের বিষয় তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশ তাঁর হৃদয়ে রয়েছে।

বৈঠকে রাষ্ট্রদূত মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী দ্বিপাক্ষিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। বাংলাদেশী অভিবাসীদের বিভিন্ন বিষয়ে সাহায্য সহযোগিতা করার জন্য রাষ্ট্রদূত মদিনার গভর্নরকে আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান।

 

রাষ্ট্রদূত করোনাকালীন বাংলাদেশি অভিবাসীদের চিকিৎসা প্রদান ও জরুরী খাদ্য সাহায্য প্রদানের জন্য গভর্নরকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান। এ সময় রাষ্ট্রদূত সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ ও যুবরাজ মোহাম্মদ বিন সালমানের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

এর আগে রাষ্ট্রদূতকে গভর্নর প্রিন্স ফয়সাল বিন সালমান তাঁর কার্যালয়ে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান। খুবই হৃদ্যতাপূর্ণ পরিবেশে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *