Categories
জাতীয়

টাঙ্গাইলে ৭ মাসের শিশু রেখে প্রেমিকের সঙ্গে উধাও গৃহবধূ

ছবি কালেকশন

টাঙ্গাইলের মধুপুর উপজেলায় সাত মাসের শিশু সন্তান রেখে পরকীয়া প্রেমিক সোলায়মানের হাত ধরে পালিয়ে গেছে জাহানারা (২৬) নামে এক গৃহবধূ। ঘটনাটি ঘটেছে মধুপুর উপজেলার পিরোজপুর গ্রামে। তিনি ওই গ্রামের খলিলুর রহমানের স্ত্রী। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

 

 

জানা যায়, পাঁচ বছর আগে মধুপুর উপজেলার পিরোজপুর গ্রামের আবু জাফরের মেয়ে জাহানারা বেগমের সঙ্গে গোপালপুর উপজেলার মিশ্রপট্রি গ্রামের সেকান্দর আলীর ছেলে খলিলুর রহমানের বিয়ে হয়। ভালোই চলছিল তাদের সংসার। সাত মাস আগে তাদের সংসারে একটি ছেলে সন্তানের জন্ম হয়।

 

 

কয়েক দিন আগে গৃহবধূ জাহানারা বেগম তার শিশু সন্তানকে নিয়ে বাবার বাড়িতে বেড়াতে যান। সেখান থেকে সাত মাসের শিশু সন্তানকে রেখে স্বর্ণালঙ্কার ও টাকা নিয়ে পরকীয়া প্রমিক সোলায়মানের হাত ধরে পালিয়ে যায়।

 

 

স্বামী খলিলুর রহমান জানান, আমার স্ত্রী পিরোজপুর তার বাপের বাড়িতে বেড়াতে গেলে একই এলাকার মো. ইদ্রিছ আলীর ছেলে সোলাইমান ওরফে সোলাই তাকে ফুসলিয়ে বিয়ের প্রস্তাব দিতে থাকে। এক পর্যায়ে সুপরিকল্পিতভাবে আমার স্ত্রী জাহানারাকে নিয়ে রাতের আঁধারে রেখে সোলাইমানের সঙ্গে পালিয়ে যায়ে।

 

 

পালিযয়ে যাওয়ার সময় আমার স্ত্রীকে দেওয়া চার ভরি ওজনের স্বর্ণালংকার নিয়ে যায়। আমি এলাকায় বিচার না পেয়ে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেছি।

 

 

 

এ বিষয়ে মেয়ের বাবা আবুজাফর সময়ের কন্ঠস্বর’কে বলেন, আমার মেয়ে রাতের আঁধারে পালিয়ে যাওয়ার সমম আনারস বিক্রির তিন লাখ টাকা সুকৌশলে নিয়ে গেছে। আর এ ব্যাপারে এলাকার মাতাব্বরদেরকে ঘটনাটি জানালে সোলাইমান এলাকায় প্রভাবশালী থাকায় আমার পক্ষে কেউ কোন কথা বলতে নারাজ
সূত্র সময়ের কন্ঠস্বর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *