Categories
বিনোদন

ভারতে আবারো ফিরতে পারে পাব্জি!

পাবজি নিষিদ্ধ হওয়ার পর থেকেই অনেকটা মন খারাপ অনলাইন ব্যাটেল গেমের প্লেয়ারদের। আট থেকে আশি মনমরা সকলেই। ভারতের লোভনীয় বাজার হাতছাড়া করতে রাজি নয় দক্ষিণ কোরিয়ার সংস্থাও। ফলে নতুন উপায়ে ভারতের বাজারে ফেরার চেষ্টা করছে পাবজি কর্পোরেশন।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রের খবরে জানা গেছে, দেশীয় কোন সংস্থার হাত ধরেই ভারতের বাজারে ফিরতে পারে এই অনলাইন গেম। এ জন্য অংশীদার হিসেবে তারা ভারতীয় সংস্থার খোঁজ শুরু করেছে বলে খবর প্রকাশিত হয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে।

চীনা সংস্থা টেনসেন্টের সঙ্গে ঝামেলার কারণেই পাবজি মোবাইল গেম নিষিদ্ধ হয়েছে ভারতে। গ্রাহকদের সুরক্ষার বিষয় জানতে চেয়ে ৭০টি প্রশ্ন পাঠানো হয়েছে সংশ্লিষ্ট সংস্থার কাছে। যদি তার যথাযথ জবাব দিতে পারে তাহলে ভারতীয় বাজারে আবারও ফিরতে পারে এই অনলাইন ব্যাটেল গেম।

এদিকে, ভারতে নিষিদ্ধ হওয়ার পরেই চীনা সংস্থার হাত থেকে পাবলিশিংয়ের স্বত্ব ফিরিয়ে নিতে চাইছে পাবজি কর্পোরেশন। আর সেই স্বত্ব ভারতীয় কোনও সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া হতে পারে বলে খবর পাওয়া গেছে।

চীনকে এড়িয়ে আলাদাভাবে লাইসেন্স পেতে আবেদন জানাবে ভারত সরকারের তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের কাছে। যেহেতু দক্ষিণ কোরিয়া ভারতের বন্ধু দেশ এবং চীনের সঙ্গেও তাদের রাজনৈতিক শত্রুতা রয়েছে, তাই সংস্থাটি মনে করছে তারা পাবজি গেমের বিপণনের জন্য নতুন করে লাইসেন্স পেতে আবেদন জানালে তা ফিরিয়ে দেবে না ভারত সরকার।

এর আগে, ১১৮টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করে ভারত। এর মধ্যে রয়েছে জনপ্রিয় গেম পাবজিও।

চীনের সঙ্গে লাদাখে প্রথম সংঘাতের পর ২০ ভারতীয় সেনা নিহত হওয়ার পরপরই বেইজিংয়ের উপর ‘ডিজিটাল স্ট্রাইক’ চালিয়েছিল ভারত সরকার। গত মাসে ৪৭টি ও এর আগে ৫৯টি চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছিলো ভারত সরকার। তখন থেকেই পাবজি গেমের প্রতি নজর ছিল ভারত সরকারের। ভারতের এই সিদ্ধান্তে চীন বড় ধাক্কা খেয়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হল, যে সব অ্যাপ আগে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল, সেই অ্যাপ-নির্মাতাদের তালিকায় ছিল টেনসেন্ট, আলিবাবা, শাওমির মতো একাধিক চীনা সংস্থা।

এখনও পর্যন্ত ভারত টিকটক, উইচ্যাট ও ইউসি ব্রাউডারসহ ২২৪ চীনা অ্যাপ নিষিদ্ধ করেছে। এই অ্যাপগুলির গ্রাহক সংখ্যা এ দেশে বেশ ভালো পরিমাণে ছিল। ফলে ভারতের এই সিদ্ধান্ত চীন বড় ধাক্কা খেয়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *