Categories
জাতীয়

এবার ভেসে উঠলো ছেলের লা’শ ও!

নড়াইলের কালনায় মধুমতী নদীতে নিখোঁজ পুলিশ সদস্য মোহাম্মদ মুসা রেজওয়ানের (২৫) মৃতদেহ উদ্ধারের সাড়ে সাত ঘণ্টা পর পাওয়া গেল তার ছয় মাস বয়সী ছেলের লাশ।

রোববার (৩০ আগস্ট) সকালে মধুমতী নদীর ইতনা ঘাটে মুসার মৃতদেহ ভেসে উঠে। একই এলাকায় বিকেল চারটার দিকে ভেসে ওঠে ছেলে আনাসের লাশ।

ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স লোহাগড়া ইউনিটের স্টেশন অফিসার মাসুদ রানা জানান, সকালে ইতনা ঘাট এলাকায় একজনের মৃতদেহ ভাসতে দেখেন এলাকাবাসী। পরে খবর পেয়ে স্বজনরা গিয়ে সেটি মুসার বলে শনাক্ত করেন।

লোহাগড়া উপজেলার চাঁচই গ্রামে মুসার বাড়িতে নেমে এসেছে শোকের ছায়া। মুসা ও তার শিশু সন্তানের এভাবে চলে যাওয়া কোনভাবেই মানতে পারছেন না স্বজন ও এলাকাবাসী। কোন সান্ত্বনাতেই থামছে না স্বজনদের আহাজারি।

জানা গেছে, ঢাকা মহাননগর পুলিশ-ডিএমপি তে কর্মরত কনস্টেবল মুসা কয়েকদিন হলো ছুটিতে বাড়ি এসেছিলেন। শুক্রবার বিকেলে স্ত্রী, শিশুসন্তানসহ পরিবারের অন্যান্যদের নিয়ে ট্রলারে করে মধুমতি নদীতে বেড়াতে যান। সেখানে বেড়ানোর একপর্যায়ে সন্ধ্যার দিকে তাদের ট্রলারটি বিকল হয়ে যায়। পরে সেটি স্রোতের তোড়ে ভেসে গিয়ে কালনা সেতুর নির্মাণকাজে অবস্থানরত পল্টুনের সঙ্গে সজোরে ধাক্কা লাগে।

এ সময় বাবার কোলে থাকা ৪ মাসের শিশু মো. আনাস ছিটকে নদীতে পড়ে যায়। এ অবস্থায় ছেলেকে উদ্ধারে তাৎক্ষণিক নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েন বাবা মুসা। পরে তিনিও নিখোঁজ হন।

শনিবার দিনব্যাপী চেষ্টা করেও নৌবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল তাদের খুঁজে পেতে ব্যর্থ হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *