Categories
জাতীয়

বাবা পুলিশ সদস্যের পর একই স্থানে মিলল শিশুপুত্রের লাশও

নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায় মধুমতি নদীতে নি’খোঁজ হওয়া পুলিশ কনস্টেবল আবু মুসা রেজওয়ানের (২৮) পর তার ছয় মাস বয়সী শিশুপুত্র আনাসের লা’শও উ”দ্ধার করা হয়েছে।

 

রোববার সকালে ঘটনাস্থল উপজেলার কানাঘাট থেকে ১ কিলোমিটার দুরে মহিষাপাড়া ঘাট এলাকায় মুসা রেজওয়ানের লা’শ ভা’সতে দেখে স্থানীয়রা। খবর পেয়ে পুলিশ এসে মুসার লা’শ উ’দ্ধার করে। বিকালে একই স্থান থেকে উ’দ্ধার করা হয় তার শিশুপুত্র আনাসের লা’শ। পুলিশ আবু মুসা রেজওয়ান ও তার শিশুপুত্রের লা’শ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে।

 

পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা গেছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় মধুমতী নদীতে ঘুরতে গিয়ে কালনাঘাটে নির্মাণাধীন সেতু এলাকায় এসে মাঝ নদীতে তাদের ট্রলারের ইঞ্জিন বন্ধ হয়ে যায়। স্রোতের তোড়ে ট্রলারটি নির্মাণাধীন কালনা সেতুর একটি পি’লারের সঙ্গে ধা’ক্কা লাগে। এ সময় পিতা মুসার কোলে থাকা শি’শু পুত্র আনাস নদী’তে পড়ে যায়। তাকে উ”দ্ধার করার জন্য মুসা নদীতে ঝাঁ’পিয়ে পড়েন। এরপর থেকে শিশু পুত্রসহ পিতা মুসা নি”খোঁ’জ হন।

 

আবু মুসা লোহাগড়া উপজেলার জয়পুর ইউনিয়নের চাচই গ্রামের আজাদ মোল্লার ছেলে। তিনি পুলিশ সদর দফতরে কর্মরত ছিলেন। সম্প্রতি ছুটিতে তিনি বাড়িতে আসেন।

 

লোহাগড়া থানার ওসি সৈয়দ আশিকুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মধুমতি নদী থেকে সকালে মুসা ও বিকালে তার শিশুপুত্রের লা”শ উ’দ্ধার করা হয়েছে। লা’শ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *