Categories
জাতীয়

সুশান্তের ব্যপারে বেরিয়ে এলো নতুন তথ্য!

বলিউড অভিনেতা সুশান্ত সিংয়ের মৃত্যুর তিন মাস হতে চলেছে। আর এরইমধ্যে তার মৃত্যু নিয়ে নতুন নতুন তথ্য বেরিয়ে আসছে। পুরো ভারতজুড়ে সুশান্তের মৃত্যু টক অব দ্য কান্ট্রি। যদিও ময়নাতদন্তের রিপোর্টে ‘আত্মহত্যা’ জানানো হয়েছে। তবে মানতে নারাজ সুশান্তের পরিবার ও তার ভক্ত-অনুরাগীরা। 

এদিকে এরই মধ্যে ভারতের সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়া টুডেকে সাক্ষাৎকার দিয়েছেন সুশান্তের বাবুর্চি নীরজ সিং। সুশান্তের বাবুর্চি নীরজ সিং ২০১৯ সালের ১১ মে থেকে সুশান্তের সঙ্গে একই ফ্ল্যাটে থাকছেন। বেশকিছু চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছেন তিনি। মৃত্যুর কয়েক ঘণ্টা আগে সুশান্তের সঙ্গে কী ঘটেছিল তা জানিয়েছেন তিনি।

সুশান্তের মৃত্যু দিনের কথা স্মরণ করে নীরজ সিংহ বলেন, ‘এটা কোনো খুন নয়, সুশান্ত স্যার ঠাণ্ডা মাথায় আত্মহত্যা করেছেন।’
তিনি বলেন, গত ১৪ জুন সকাল ৮টায় সুশান্ত স্যার ঘুম থেকে উঠেছিলেন। আমি সে সময় নিজে গেট পরিস্কার করছিলাম। তখন স্যার এসে বললেন ঠাণ্ডা পানি দাও। সাথে সাথে তাকে পানি দিয়েছিলাম। পানি দেওয়ার সময় উনি জিজ্ঞেস করেছিলেন সবকিছু ঠিক আছে কী না। আমি বললাম ‘জি স্যার’। তিনি মুচকি একটি হাসি দিয়ে তার ঘরে চলে গেলেন।

নীরজ সিংহ আরো বলেন, ‘সকাল ১০টার দিকে স্যারকে জিজ্ঞাসা করলাম তিনি নাস্তায় আজ কি খাবেন? তিনি তখন নারকেলের পানি, কমলার রস এবং কলা চেয়েছিলেন। নাস্তা করার পর তিনি দরজা বন্ধ করেন। এরপর দুপুরের দিকে স্যারকে কেশব (অন্য বাবুর্চি) জিজ্ঞাসা করতে গেল তিনি লাঞ্চে কী খাবেন? কিন্তু ভেতর থেকে কোনো জবাব আসেনি তার। এরপর ১০-১৫ মিনিট পর আবার নক করলাম কোনো সাড়া মিলল না। সাড়া না পাওয়ায় সুশান্ত স্যারের বন্ধু সিদ্ধার্থ স্যারকে জানালাম। উনিও নাকি স্যারকে ফোন করেছিলেন। কিন্তু কোনো উত্তর মেলেনি। এরপর বিষয়টি আমরা সুশান্ত স্যারের বোন মিতুকে বলি। তিনি বলেন তালা ভাঙার ব্যবস্থা করতে। আমরা তালা ভাঙার জন্য লোক ডাকলাম। তিনি এসে পাঁচ মিনিটের মধ্যে সুশান্ত স্যারের রুমের তালাটি ভেঙে ফেললেন। আমরা ভেতরে গিয়ে যা দেখলাম তার জন্য কখনই প্রস্তুত ছিলাম না। সিদ্ধার্থ স্যার, আমি ও দিপেশ প্রথম ঘরে প্রবেশ করে সুশান্ত স্যারকে ফ্যানে ঝুলতে দেখি। সুশান্ত স্যার তার কুর্তা ব্যবহার করেছিলেন ফ্যানে ঝুলার জন্য। এটা স্পষ্ট যে তিনি নিজেই গলায় কুর্তা বেঁধেছিলেন।’

নীরজ আরো জানান, ঘরে ঢোকার পর সবার সহযোগিতায় অভিনেতার দেহ নামিয়ে আনেন সিদ্ধার্থ। সুশান্তের বোন যখন বাসায় প্রবেশ করে তখন তিনজন মিলে সুশান্তের বুকে চাপ দিচ্ছিল নিঃশ্বাস স্বাভাবিক রাখার জন্য। কিন্তু সেটা অনেক দেরি হয়েছিলো। ততক্ষণে সুশান্ত স্যারের মৃত্যু হয়ে গিয়েছিল।

মৃত্যুর আগের দিন রাতে সুশান্ত কি করেছিলেন জানতে চাইলে নীরজ বলেন, আগের দিন রাতে স্যার রাতের খাবার খাননি। এক গ্লাস আমের মিল্কশেক চেয়েছিলেন। সেটি পান করেই তিনি ঘুমাতে যান। এবং পরেরদিন খুব স্বাভাবিকভাবেই তিনি কিন্তু ঘুম থেকে উঠেছিলেন।

ইতোমধ্যে সুশান্তের মৃত্যুর তদন্ত সুপ্রিম কোর্টের চূড়ান্ত নির্দেশ পাওয়ার সিবিআইয়ের হাতে চলে এসেছে। অন্যদিকে সুশান্তের মামলায় কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হয়েছে, পরিচালক সঞ্জয় লিলা বানসালি, আদিত্য চোপড়া ও মহেশ ভাট, অভিনেত্রী রিয়া চক্রবর্তী, অঙ্কিতা, সুশান্তের বন্ধু সিদ্ধার্থসহ আরো অনেককে। সুশান্তের মৃত্যুতে প্ররোচণাকারী হিসাবে তাদের দোষ দেয়া হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ১৪ জুন মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় নিজ বাসায় বলিউডের এ তরুণ নায়কের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে বলা হয়েছে, আত্মহত্যা করেন সুশান্ত সিং রাজপুত। আত্মহত্যার বিষয়টি মেনে নিতে পারছেন না সুশান্তের অসংখ্য ভক্ত। সেই তালিকায় রয়েছেন বলিউডের অসংখ্য তারকা থেকে রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বও।

তথ্যসূত্র: ইন্ডিয়া টুডে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *