Categories
জাতীয়

সেই রায়হানের ফেরার খবরে পরিবারে আনন্দের বন্যা

সেই রায়হানের ফেরার খবরে পরিবারে আনন্দের বন্যা

 

ফাইল ছবি

সেই রায়হানের ফেরার খবরে পরিবারে আনন্দের বন্যা
আরব আমিরাতের টেলিভিশন চ্যানেল আল-জাজিরায় সাক্ষাৎকার দেয়ার অভিযোগে মালয়েশিয়ায় গ্রেফতার হওয়া নারায়ণগঞ্জের বন্দর উপজেলার প্রবাসী যুবক রায়হান কবির বাংলাদেশে ফিরছেন বলে নিশ্চিত হওয়া গেছে।

শুক্রবার রাতে রায়হানের বাবা মো. শাহ আলম ও মা রাশিদা বেগম সময় নিউজকে জানান, তাদের ছেলে রায়হান কবির মালয়েশিয়া থেকে বিমানে উঠেছে বাংলাদেশে আসার উদ্দেশে। বিমানে ওঠার আগে মোবাইল ফোনে ভিডিও কল করে তার পরিবারের সদস্যদের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ঢাকার শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রাত ১টায় অবতরণকারী বিমানের ফ্লাইটে রায়হানের আসার কথা রয়েছে। ভোর নাগাদ সে বাড়ি ফিরবে সেজন্য অপেক্ষা আর উৎকণ্ঠায় আছেন পরিবারের স্বজনরা।

এদিকে ছেলে ফিরে আসার খবরে রায়হান কবিরের পরিবারের স্বজনদের মধ্যে আনন্দের বন্যা বইছে। মা রাশিদা বেগম বারবার টেলিভিশনের খবরে চোখ রাখছেন। আবার কিছুক্ষণ পর পর বিমানবন্দরে রায়হানকে আনতে যাওয়া স্বজনদের ফোন করে খবর নিচ্ছেন।

রায়হানের ছোট বোন মেহেরুন নেছা সময় নিউজকে জানান, দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর ভাই ফিরে আসছে এই আনন্দে তার পছন্দের বিভিন্ন ধরনের খাবার রান্না-বান্না ও নতুন পোশাক কেনাসহ নানা আয়োজন করছেন মা রাশিদা বেগমসহ স্বজনরা। রায়হান ফিরে আসার খবরে আনন্দিত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ গণমাধ্যম কর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন মা রাশিদা বেগম ও ছোট বোন মেহেরুন নেছা।

মা রাশিদা বেগমের দাবি, রায়হান সম্পূর্ণ নির্দোষ। বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টাসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে ব্যাপক প্রচারের কারণে মালয়েশিয়া সরকার ছেড়ে দিতে বাধ্য হয়েছে। এ জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিশেষভাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি।
গত ৩ জুলাই মালয়েশিয়ায় অবস্থানরত বাংলাদেশি অভিবাসনকারীদের দুঃখ দুর্দশার চিত্র তুলে ধরে আল-জাজিরা টেলিভিশনে বক্তব্য দিয়ে দেশটির সরকারের রোষানলে পড়েন নারায়ণগঞ্জের বন্দরের রায়হান কবির। এর কারণে ৮ জুলাই মালয়েশিয়া সরকার তার ওয়ার্ক পারমিট বাতিল করে এবং ২৪ জুলাই তাকে গ্রেফতার করে ১৩ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে সেখানকার পুলিশ।

এ ঘটনার পর দেশ-বিদেশে তুমুল সমালোচনা ও প্রতিবাদের ঝড় উঠলে বিভিন্ন গণমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। তবে জিজ্ঞাসাবাদে তার বিরুদ্ধে কোনো অভিযোগ গঠন না হওয়ায় অভিবাসন আইনে তাকে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় মালয়েশিয়া সরকার। সেই সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আজ তাকে বাংলাদেশে পাঠানো হচ্ছে
সূত্র সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *