Categories
জাতীয়

ভেরিফিকেশনে ফুল মিষ্টি নিয়ে দেশব্যাপী ব্যাপক আলোচনার জন্ম দিল এএসপি

গত রোববার তাদের বাসায় সরেজমিন ভেরিফিকেশন করতে গিয়ে তাদে’রকে ফুল ও মিষ্টি নিয়ে শুভে’চ্ছা জানান চট্টগ্রাম জেলা পুলিশে’র সহকা’রী পুলিশ সুপার (রাঙ্গু’নিয়া সার্কেল) মো আ’নোয়ার হোসেন শামীম।

 

৩৮তম বিসি’এসে গণপূর্ত ক্যা’ডারে সুপারি’শকৃত এ’কজন প্রার্থী ও’য়াহিদ মুরাদ আজম সামাজিক যো’গাযোগ মাধ্যম ফে’সবুকে ‘পুলিশ ভেরিফিকেশন এবং এএসপির মিষ্টি’ শিরোনামে একটি পোস্ট করলে তা দেশব্যা’পী ব্যাপক ‘আলোচ”’নার জন্ম দেয়। ওয়াহিদ রাঙ্গুনিয়া উপ’জেলা’ধীন মরিয়’ম নগর এলাকার বাসিন্দা এবং চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববি’দ্যা’লয় (চুয়েট) এর সাবেক ছাত্র। কক্স’বা’জারের ঘটনা’য় দেশব্যা’পী পুলিশের ভা’বমূ’র্তি যখন তলা’নিতে, তখন পুলি’শের এমন অ’ভিনব উ’দ্যোগে’র প্রশংসা ক’রেছেন নেটি’জে’নরা।

 

ওয়াহিদ লিখেন, ‘আমা’র ৩৮তম বিসিএসের পুলিশ ভে’রিফি’কেশন শেষ হলো আজ। ভেরিফিকেশন করতে এসে’ছিলেন রাঙ্গু’নিয়া সা’র্কেলের এএসপি আনো’য়ার হোসেন (শামীম আনো’য়ার), আমরা এতদিন ধ’রেই নি’য়েছি ভেরি’ফি’কেশন মানেই পুলি’শকে ঘুষ দিতে হবে। কিন্তু আজ আমা’দেরকে অবাক বা’নিয়ে উ’ল্টো এএসপি শামীম আ’নোয়ার স্যারই আমা’র জন্য মিষ্টি ও ফুলে’র তোড়া উপহা’র হিসেবে নিয়ে এলেন।

 

আ’মাদের অনেক অনু’রোধে’র পরও এক কাপ চাও খেলেন না। এম’নকি এক গ্লাস পানিও না ধন্যবাদ বাংলাদেশ পুলিশ। পুলিশে ইতিবাচক পরিবর্তন যে আ’সছে, তার প্রমাণ আজ হা’তেনা’তেই টের পেলাম। অ’নেকে বল’বেন, আ’মার কাছ থেকে টাকা নে’য়নি বলে এবং উপহার দিয়েছে বলেই আজ আমি পুলিশ’কে ভাল বলছি। কিন্তু না। আমি সত্যিই অবাক হয়ে গেছি, যা ঘ’টেছে তার ১০% ও আশা ক’রিনি। ঘুষে’র ব্যা’পার না, পুলি”শের আ’চরণ, অমা’য়িক ব্যব’হার, সত্যি বলছি, সবকি’ছু মি’লিয়ে আ’মাকে উন্নত বি’শ্বের পুলি’শের কথা মনে ক’রিয়ে দিয়েছে।’

 

ওয়াহিদ ছাড়াও ৩৮তম বিসিএসের মাধ্যমে রা’ঙ্গুনিয়া উপজে’লার পারুয়া গ্রামের খায়’রু’ন্নেসা স্বা’স্থ্য ক্যা’ডা’রে, নটুয়ার টিলা গ্রামের আরা’ফাতু নূর বাঁধন পুলিশ ক্যাডারে, রাউ’জান উপজে’লার সুলতান পুর গ্রা”মের জা’ন্নাতুন নাই’ম শিক্ষা ক্যা’ডা’রের সুপা’রিশ’কৃত হয়েছেন।

এ প্রসঙ্গে জানতে চাই’লে এএসপি মো. আনোয়ার হোসে’ন শামী’ম বলেন, ভেরিফিকেশন প্রক্রিয়া নিয়ে চা’করি’প্রার্থীদে’র মধ্যে এক ধ’রনের ভীতি ও নেতি’বাচক মনো’ভাব কাজ করে থাকে। মূলত এই ধা’রণা দূর কর’তেই চট্টগ্রা’ম জেলা পুলিশ সুপা’র এসএম রশিদুল হ’কের নির্দে’শনা অনুযা’য়ী সু’পারি’শকৃত বি’সিএস ক্যা’ডারদে’র ফুল ও মি’ষ্টি দিয়ে শুভেচ্ছা জানা’নোর উ’দ্যো’গটি গ্রহণ করা হয়েছে।

 

আর তাছা’ড়া অল্প কিছুদি’নের মধ্যেই এসব কর্মক’র্তা সারাদে’শে নিজ নিজ অ’ধি’ক্ষেত্রে ছড়িয়ে পড়তে চলেছেন। তাদের’কে সমা’জের প্রা’ন্তিক জনগো’ষ্ঠীর সে’বায় আ’ত্মনি’য়োগে উ’দ্বুদ্ধ করা ও পুলিশের কাজ সম্প’র্কে তাদের মনে ইতি’বাচক ধারণা দেও’য়াও ছিল এই কর্ম’কা’ণ্ডের অন্যতম উদ্দেশ্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *