Categories
জাতীয়

সাহেদ বললেন বুকে ব্যথা, হাসপাতালে দেখা গেল মিছে কথা

রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদের সময় বুকে ব্য’থার কথা বললে হাসপাতালে নেওয়া হয় বি’তর্কি’ত রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান মো. সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমকে। মঙ্গলবার তাকে দ্বিতীয় দিনের মতো জিজ্ঞাসাবাদ করছিলো দুর্নী’তি দ’মন কমিশন (দুদক)। এদিন সকাল সাড়ে দশটার দিকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরুর দিকে তিনি হঠাৎ করে বলেন, তার বুকে প্রচ’ণ্ড ব্য’থা করছে।

 

এরপর তদ’ন্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ শাহাজাহান মিরাজ তাকে দ্রুত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) নিয়ে যান। এ সময় তার ইসিজিসহ তিনবার র’ক্ত পরীক্ষা করা হয়। অন্যান্য পরীক্ষা করেও চিকিৎসক তার বুকে কোনো সমস্যা পাননি। তার র’ক্তচাপসহ শারীরিক অন্যান্য বিষয়ও ছিল স্বাভাবিক।

 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দুদকের একজন কর্মকর্তা সমকালকে বলেন, ‘ডাক্তার নানা পরীক্ষা করে তার বুকে কোনো সমস্যা পাননি। এরপরও তিনি ডাক্তারকে বলছিলেন, বুকে প্র’চ’ণ্ড ব্য’থা করছে। ব্যথা না থাকার পরও তিনি যদি বলেন, ব্য’থা করছে- তাহলে কিইবা করার থাকতে পারে!’

 

এরপর বিএসএমএমইউ থেকে সাহেদকে ঢাকার সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে আনা হয় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য। জা’লিয়া’তি করে পদ্মা ব্যাংকের অর্থ আ’ত্মসা’তের অভি’যোগে দা’য়ে’র করা মা’মলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আ’দালত তার সাত দিনের রি’মা’ন্ড মঞ্জুর করেন। মঙ্গলবার তাকে দ্বিতীয় দিনের মতো জি’জ্ঞাসাবাদ করা হয়। সাত দিনের জি’জ্ঞাসা’বাদ শেষে তাকে আ’দালতে সো’প’র্দ করা হবে। জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে রমনা থানা হা’জ’তে রাখা হচ্ছে।

রিজেন্ট হাসপাতালের এমআরআই মেশিন কেনার নামে জা’লিয়া’তি করে ঋণের নামে সাবেক ফারমার্স ব্যাংকের (বর্তমান পদ্মা ব্যাংক) ১ কোটি টাকা আ’ত্মসা’ৎ করেন সাহেদ করিম। চলতি বছরের ১৫ জুলাই পর্যন্ত ওই টাকা সু’দ-আসলে ২ কোটি ৭১ লাখ টাকা হয়েছে। এই পরিমাণ টাকা আ’ত্মসা’তের অভি’যো’গে গত ২৭ জুলাই সাহেদ করিমসহ চার জনকে আসা’মি করে মাম’লা করে দুদক।

 

মাম’লার অন্য তিন আসা’মি হলেন- সাবেক ফারমার্স ব্যাংকের (বর্তমানে পদ্মা ব্যাংক) নীরিক্ষা কমিটির সাবেক চেয়ারম্যান মাহবুবুল হক চিশতী ওরফে বাবুল চিশতী, বাবুল চিশতীর ছেলে রাশেদুল হক চিশতি ও রিজেন্ট হাসপাতালের এমডি মো. ইব্রাহিম খলিল। বাবুল চিশতী বর্তমানে জে’লে আছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *