Categories
জাতীয়

বগুড়ায় বজ্রপাতে পুড়ে গেলেন মা, বেঁচে গেল কোলের সন্তান

বগুড়ার শাজাহানপুর উপজেলায় বজ্রপাতে কাজলী বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। এসময় বেঁচে গেছে মায়ের কোলে থাকা ছয় বছর বয়সী এক শিশু পুত্র। সোমবার দুপুরের দিকে উপজেলার খোট্টাপাড়া ইউনিয়নের জালশুকা দক্ষিণপাড়ায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

 

খোট্টাপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল ফারুক জানান, সকালে জালশুকা দক্ষিণপাড়ার হোসেন আলী তার ছয় বছর বয়সী শিশু পুত্রকে সাথে নিয়ে মাঠে কাজ করতে যান। দুপুরের দিকে বৃষ্টি শুরু হলে শিশু পুত্রকে আনতে মা কাজলী বেগম ছাতা নিয়ে মাঠে যান।

শিশুটিকে কোলে করে ফেরার পথে বজ্রপাতে কাজলী বেগমের গায়ে আগুন ধরে যায়। বজ্রপাতে মায়ের শরীর পুড়ে গেলেও শিশুটির শরীরের এক অংশ হালকা পুড়ে যায়। গুরুতর আহত অবস্থায় কাজলী বেগমকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

 

শাজাহানপুর থানা পুলিশের ওসি আজিম উদ্দীন জানান, বজ্রপাতে মৃত্যুর ঘটনা লোকমুখে জানতে পেরেছি।অপরদিকে, ধুনট উপজেলায় আমন ধান রোপনকালে বজ্রপাতে এক কৃষক ও কোরবানির গরু মারা গেছে। একই ঘটনায় স্কুলশিক্ষকসহ ৩ জন আহত হয়েছেন। সোমবার বেলা ১১টার দিকে উপজেলার নসরতপুর ও রাঙ্গামাটি দিদারপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

 

নিহত কৃষকের নাম শুকুর আলী (৪৮)। তিনি উপজেলার চৌকিবাড়ি ইউনিয়নের নসরতপুর গ্রামের আলতাব হোসেনের ছেলে। এছাড়া আহত হয়েছেন পেচিবাড়ি বিলকাজুলী উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক নসরতপুর গ্রামের আলী আফছার (৫২), কৃষক ফোরহাদ হোসেন (৩০) ও আব্দুল মান্নান (২৫)।

জানা গেছে, সোমবার সকাল থেকে বজ্রবৃষ্টি শুরু হয়। এ অবস্থায় কৃষক শুকুর আলী বাড়ির পাশে মাঠের ভেতর জমিতে ধান রোপন করছিলেন। এ সময় বজ্রপাতে তিনি ঘটনাস্থলেই মারা যান। একই স্থানে বজ্রপাতে স্কুলশিক্ষক ও আরও ২ কৃষক আহত হয়েছেন। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

 

এদিকে উপজেলার এলাঙ্গী ইউনিয়নের রাঙ্গামাটির দিদারপাড়া গ্রামের হামিদুল ইসলাম নামে এক কৃষকের একটি কোরবানির গরু মাঠে ঘাস খাওয়ানোর জন্য নেন। এসময় বজ্রপাতে ঘটনাস্থলেই গরুর মৃত্যু হয়। ধুনট থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কৃপা সিন্ধু বালা এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

অন্যদিকে, বগুড়ার নন্দীগ্রামে বজ্রপাতে সাদ্দাম হোসেন (২৬) নামে এক শ্রমিককের মৃত্যু হয়েছে। তিনি সিংড়া উপজেলার রামানন্দ খাজুরিয়া ইউনিয়নের বাঁকাইকুড়ি গ্রামের আবু হানিফের ছেলে।পৌরসভার ৩নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর আলী হাসান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। সোমবার সকাল ১০ টার দিকে পৌরসভার বৈলগ্রাম মাঠে এঘটনা ঘটে।

 

জানা গেছে, বৈলগ্রাামের শুকুর আলীর আমন ধানের জমি রোপনের কাজ নেয় তারা। সেই মোতাবেক তারা সকাল থেকে বৈলগ্রাম পূর্ব মাঠের ভেতর জমি রোপনের কাজ শুরু করে। এমতাবস্থায় বজ্রসহ বৃষ্টিপাত শুরু হয়। এসময় বজ্রপাতে কৃষি শ্রমিক সাদ্দাম হোসেন মারা যায়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *