Categories
জাতীয়

মাঝরাতে ঘুম থেকে উঠে মাকে খোঁজে অবুঝ তুবা

এক বছর আগে সন্তানদের স্কুলে ভর্তির বিষয়ে খোঁজখবর নিতে গেলে রাজধানীর বাড্ডায় প্রাইমারি স্কুল গেটে ছেলেধ’রা সন্দে’হে রেনুকে গণপি’টু’নি দিয়ে হ’ত্যা করা হয়। এ ঘটনায় অ’জ্ঞা’ত ৫০০ জনের বি’রু’দ্ধে হ’ত্যা মা’মলা দা’য়ের করা হলেও এখনো দাখিল করা হয়নি প্রতিবেদন। এদিকে মাকে হারিয়ে ভালো নেয় রেনুর মেয়ে তুবা। মাঝরাতে ঘুম থেকে উঠে মাকে খুঁজে বেড়ায় সে। তুবা সবসময় তার মায়ের কথা বলে। ঠিকমতো ঘুমায় না। মন খারাপ করে থাকে সারাক্ষণ।

 

নি’হ’ত রেনুর তাহসিন আল মাহির নামে ১১ বছরের একটি ছেলে ও তুবা নামের চার বছর বয়সী এক মেয়ে রয়েছে। তারা এখন তার খালা নাজমুন নাহার নাজমার কাছেই থাকে।মাহির বনানী বিদ্যানিকেতনে পঞ্চম শ্রেণিতে ও তুবা শিশুমেলা স্কুলে প্লেতে পড়ছে। তুবার খালা নাজমা বলেন, ‘তুবা সবসময় তার মায়ের কথা বলে। ঠিকমতো ঘুমায় না। মন খারাপ করে থাকে। এমনও হয় যে রাত ২টা বা ৩টার সময় ঘুম থেকে উঠে মাকে খোঁজে। ওর এই ক’ষ্ট আর স’হ্য হয় না!’

 

মামলার বাদী সৈয়দ নাসির উদ্দিন টিটু বলেন, ‘হ’ত্যার এক বছর হয়ে গেল। কিন্তু এখনো মা’ম’লার তদ’ন্ত শেষ হলো না। কবে তদ’ন্ত শেষ হবে আর কবে বি’চার পাব? এখন তো মনে হচ্ছে বি’চারই পাওয়া যাবে না।মাম’লার তদ’ন্তকারী তদ’ন্ত কর্মকর্তা ও ডিবির পুলিশ পরিদর্শক আব্দুল হক বলেন, ‘মাম’লা’টির গুরুত্বসহকার তদ’ন্ত চলছে। আমরা আশা করছি, খুব শিগগিরই আদালতে প্রতিবেদন জমা দিতে পারব।’

 

রাজধানীর উত্তর বাড্ডায় গত বছরের ২০ জুলাই সকালে ছেলেধ’রা সন্দে’হে তাসলিমা বেগম রেনুকে পি’টিয়ে আ’হত করে বিক্ষু’ব্ধ জনতা। গুরুতর আ’হত অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃ’ত ঘোষণা করেন।ওই ঘটনায় ওইদিন বাড্ডা থানায় ৪০০-৫০০ জন অ’জ্ঞা’তনামা ব্যক্তির বিরু’দ্ধে হ’ত্যা মা’মলা করেন রেনুর ভাগ্নে নাসির উদ্দিন।

মামলা দা’য়েরের পর ১৪ জনকে গ্রে’ফতার করে পুলিশ। গ্রেফ’তারকৃত আসা’মিরা হলেন–মো. শাহীন (৩১), মো. বাচ্চু মিয়া (২৮), মো. বাপ্পি (২১), ইব্রাহিম ওরফে হৃদয় মোল্লা (২০), মুরাদ মিয়া (২২), মো. সোহেল রানা (৩০), মো. বিল্লাল (২৮), মো. আসাদুল ইসলাম (২২), মো. রাজু (২৩), আবুল কালাম আজাদ (৫০), মো. কামাল হোসেন (৪০), মো. ওয়াসিম (১৪), রিয়া বেগম ময়না (২৭) ও মো. জাফর হোসেন (২০)। তাদের মধ্যে ওয়াসিম, হৃদয় ও রিয়া বেগম আদালতে স্বীকা’রোক্তিমূলক জবানব’ন্দি দিয়েছেন। বিভিন্ন সময়ে জামিনে মু’ক্তি পেয়েছেন পাঁচ আ’সামি। তারা হলেন–রিয়া বেগম, বাচ্চু মিয়া, শাহীন, মুরাদ ও বাপ্পি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *