Categories
জাতীয়

৯৯ শতাংশ মানুষ মনে করেন শেখ হাসিনাই দেশকে দুর্নীতিমুক্ত করতে পারবেন

চলমান ক্যাসিনো বিরোধী অভিযানে এক জরিপে দেখা গেছে, দেশের ৯৭ শতাংশ মানুষই এতে সন্তুষ্ট। ৫৮ শতাংশ মানুষ মনে করেন, অ’বৈধ ক্যা’সিনো বাণিজ্যের সঙ্গে বিভিন্ন সময় ক্ষমতাসীন দলের কিছু নেতা সরাসরি জড়িত থাকেন। আর ৯৯ শতাংশ অংশগ্রহণকারীই মনে করেন, শেখ হাসিনাই দেশকে স’ন্ত্রা’স ও দুর্নী’তিমুক্ত করতে পারবেন।

 

৮৮ শতাংশ মানুষ বলেছেন, এই অভি’যানের মাধ্যমে সরকার ও আওয়ামী লীগের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল হবে। ১৮ শতাংশ মনে করেন, মোটামুটি দুর্নী’তিমুক্ত হবে। এক শতাংশ মনে করেন, পারবেন না। ৪ শতাংশ বলেছেন, অভি’যানে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে। ৮ শতাংশ বলেছেন, এই অভি’যানের কোনো প্রভাব পড়বে না।

 

রাজধানীর ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) সাগর-রুনি মিলনায়তনে আজ এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য তুলে ধরেছে গবেষণা প্রতিষ্ঠান রিসার্চ ইন্টারন্যাশনাল।চলমান ক্যাসিনো বিরো’ধী অভি’যান সর্ম্পকে পরিচালিত জনমত জরিপের ফলাফল প্রকাশ উপলক্ষ্যে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে জরিপের ফলাফল তুলে ধরেন অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী গবেষক অধ্যাপক ড. আবুল হাসনাত মিল্টন।

 

এসময় উপস্থিত ছিলেন বিইউপির খন্ডকালীন শিক্ষক ও সহ-গবেষক কাজী আহমেদ পারভেজ, উন্নয়ন গবেষণা বিশেষজ্ঞ মোশাররফ হোসেন ও রিসার্চ ইন্টারন্যাশনালের প্রকল্প সমন্বয়কারী মোহাম্মদ মোফাজ্জল হুসাইন রনি।
অধ্যাপক ড. আবুল হাসনাত মিল্টন বলেন, চলতি বছরের ২৮ সেপ্টেম্বর থেকে ৩ অক্টোবর পর্যন্ত দেশের আটটি বিভাগের প্রায় তিন হাজার মানুষের মোবাইলে ফোন করে ক্যাসি’নো বিরো’ধী অভি’যান সর্ম্পকে কিছু প্রশ্ন করা হলে এক হাজার ৭৬০ জন মানুষ তাদের মতামত দিয়েছেন।

 

জরিপে অংশ নেওয়া ৯৯ শতাংশ অংশগ্রহণকারী দেশ পরিচালনায় প্রধানমন্ত্রীর ওপর সন্তুষ্ট। এদের মধ্যে ৭৫ শতাংশ খুব বেশি সন্তুষ্ট, ২৪ শতাংশ মোটামুটি সন্তুষ্ট এবং এক শতাংশ অ’সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন।জরিপে অংশ নিয়ে ৮৪ শতাংশ উত্তরদাতা দেশে বৈ’ধভাবে ক্যাসি’নোর লাইসেন্স দেওয়ার বিরো’ধীতা করেছেন, ১১ শতাংশ নির্দিষ্ট এলাকায় দেওয়ার পক্ষে এবং ৫ শতাংশ অংশগ্রহণকারী ক্যা’সিনো বৈধ করার পক্ষে মতামত দিয়েছেন।

 

৫৮ শতাংশ মানুষ মনে করেন, অ’বৈধ ক্যাসি’নো বাণিজ্যের সঙ্গে বিভিন্ন সময় ক্ষমতাসীন দলের কিছু নেতা সরাসরি জড়িত থাকেন। ৩৪ শতাংশ উত্তরদাতার মতে, এসব নেতারা পরোক্ষভাবে জড়িত থাকেন।অন্যদিকে প্রধানমন্ত্রীর সার্বিক কার্যক্রমে অধিক সন্তুষ্টি প্রকাশ করেছেন ৭৫ শতাংশ অংশগ্রহণকারী, ২৪ শতাংশ সন্তুষ্ট এবং এক শতাংশ কোনো সন্তুষ্টি প্রকাশ করেনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *