Categories
জাতীয়

অপরাধ প্রমাণিত হলে সাহেদের ফাঁসিও হতে পারে

করোনা পরীক্ষার ভুয়া সনদসহ বহুমাত্রিক জালিয়াতিতে গ্রে’প্তার রিজেন্ট হাসপাতালের স্বত্বাধিকারী ও রিজেন্ট গ্রুপের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সাহেদ ওরফে সাহেদ করিম অপরাধ প্রমাণিত হলে তার মৃ’ত্যুদ’ণ্ডও হতে পারে বলে জানিয়েছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খুরশিদ আলম খান।

 

তিনি বলেন, সাহেদের বিরু’দ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে জাল মুদ্রার একটি মা’মলা করেছে র‌্যাব। এটি প্রমাণ করতে পারলে মৃ’ত্যুদ’ণ্ড বা যাবজ্জী’বন বা ১৪ বছরের সশ্রম কা’রাদ’ণ্ড হতে পারে তার। এছাড়া অনকেগুলো প্র’তারনার মা’মলা রয়েছে। সেখানে দ’ণ্ডবিধির ৪২০ ধারায় সর্বোচ্চ সাত বছরের সা’জা হতে পারে সাহেদের।

 

খুরশিদ আলম খান বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে রিজেন্ট হাসপাতালের যে চুক্তি হয়েছে তার বৈধতা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এ বিষয়ে অনুস’ন্ধানের জন্য দুদক টিম গঠন করেছে। চুক্তি অ’বৈধভাবে হয়ে থাকলে জড়ি’তদেরকে খোঁজে বের করা হবে।

আর এই চুক্তির ফলে সরকারের কোন টাকা ক্ষতি হয়েছে কি না সেটা দেখা হবে। প্রয়োজনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের ডিজি এবং আরও উর্ধ্বতনদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। আর কোন কিছু উদ্ঘাটন হলে সবার বিরু’দ্ধে অপরা’ধের ধরন অনুযায়ী মাম’লা হবে।

 

তিনি আরও বলেন, শাহেদের অবৈধ সম্পদের উৎস সম্পর্কে জানতে পৃথক অনুসন্ধান কমিটি গঠিত হয়েছে। উৎস যদি জ্ঞাত আয় বহির্ভুত হয় বা উৎসের সঙ্গে আয়ের মিল না থাকলে মামলা হবে। সেখানে কোন মানিলন্ডারিং এবং কাউকে ঘু’ষ দেয়ার প্রমাণ পেলে যাকে দিয়েছে তাকেসহ মাম’লা হবে। সূত্র : আস 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *