রেমিট্যান্সের পর রপ্তানি আয়েও বাজিমাত

রেমিট্যান্সের পর রপ্তানি আয়েও বাজিমাত

প্রবাসী আয়ের (রেমিট্যান্স) পর রপ্তানি আ’য়েও বড় ধরনের উ’ল্লম্ফন হয়েছে।এই অর্থবছরের প্রথম মাস জু’লাইয়ে বিভিন্ন পণ্য রপ্তা’নি করে প্রায় ৪ বিলিয়ন ডলার দেশে এসেছে। ফলে রেমিট্যান্স আর রপ্তানিতে বা’জিমাত করে নতুন অ’র্থবছর ২০২২-২৩ শুরু করল বাংলাদেশ। নতুন অর্থবছরের শুরুর মা’সে এই রপ্তানি আয় গত বছরের একই মাসের চেয়ে ১৪ দশমিক ৭২ শতাংশ বেশি। আর ল’ক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১ দশমিক ৬৫ শতাংশ বেশি এসেছে।

মঙ্গলবার এ তথ্য প্রকাশ করেছে রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)।প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত ১ জুলাই থেকে শুরু হওয়া ২০২২-২৩ অর্থ’বছরের পুরো মাসে প্রায় ৪ বিলিয়ন (৩৯৮ কোটি ৪৮ লাখ ২০ হাজার) ডলারের পণ্য রপ্তানি করেছে বাংলাদেশ।

করোনার অভিঘাত আর রাশিয়া-ইউ’ক্রেন যু”দ্ধের কারণে বিশ্ব বাণিজ্যে অস্থির পরিস্থিতির মধ্যেও রপ্তানিতে এই উল্লম্ফনকে দেশের অর্থ’নীতির জন্য আশাজাগানিয়া লক্ষণ হিসেবে অভিহিত করছেন অর্থনী’তিবিদ ও রপ্তানিকারকরা।

তথ্য বলছে, গত ২০২১-২২ অর্থ’বছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে রপ্তানিতে আয় হয়েছিল ৩৪৭ কোটি ৩৪ লাখ (৩.৪৭ বিলিয়ন) ডলার। লক্ষ্য’মাত্রা ধরা হয়েছিল ৩৯২ কোটি (৩.৯২ বিলিয়ন) ডলার।এ হিসাবে প্রবৃদ্ধি হয়ে’ছে ১৪ দশমিক ৭২ শতাংশ। আর লক্ষ্যের চেয়ে বেড়েছে ১ দশমিক ৬৫ শতাংশ।

ইপিবির তথ্য বলছে, চলতি অর্থবছরের শুরুর মা’সে (জুলাই) মোট রপ্তানি আয়ের মধ্যে তৈরি পোশাক খাত থেকেই এসেছে ৩৩৬ কো’টি ৬৯ লাখ (৩.৩৬) ডলার বা ৮৪ দশমিক ৫০ শতাশ।প্রবৃদ্ধি হয়েছে ১৬ দশমিক ৬১ শতাংশ।

গত ২০২১-২২ অর্থবছরে পণ্য রপ্তানি করে ৫২ দশমিক শূন্য আট বিলিয়ন ডলার আয় হয়েছিল, যা আগের অর্থবছরের (২০২০-২১) চে’য়ে ৩৪ দশমিক ৩৮ শতাংশ বেশি আয় হয়েছিল। উল্লেখ্য, ২০২২-২৩ অর্থবছরে ৫৮ বিলিয়ন ডলারের রপ্তানি আয়ের লক্ষ্য ধরা হয়েছে। এদিকে জুলাই মাসে রেমিট্যান্সও বে’ড়েছে ১২ শতাংশের বেশি। এই মাসে প্রবাসীরা ২.১০ বিলিয়ন (২১০ কোটি) ডলার পাঠিয়েছেন দেশে, যা ১৪ মাসের মধ্যে সবচেয়ে বেশি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2022 Jonotaralo
Design BY NewsTheme