গাড়ির মধ্যে থাকা কেউই জীবিত নেই, বেঁচে রইলেন শুধু নবদম্পতি

গাড়ির মধ্যে থাকা কেউই জীবিত নেই, বেঁচে রইলেন শুধু নবদম্পতি

হৃদয় (২৫) ও রিয়া মনির (২১) বিয়ে হয়েছে গত শনিবার। আজ সোমবার স্বজনেরা নবদ’ম্পতিকে নিয়ে কনের বাবার বাড়ি যা’চ্ছিলেন। পথে উ’ত্তরার জসিমউদ্দিন মোড় সংল’গ্ন সড়কে বিআরটির প্রকল্পের গার্ডার পড়ে তাঁদের বহনকারী প্রাইভেটকারের ওপর। প্রাইভেটকারে আরোহী ছিলেন সাত জন।

ছিলেন হৃদয়ের বাবা রুবেল (৬০), হৃদয়ের শাশুড়ি ফা’হিমা (৪০), কনে রিয়া মনির খালা ঝরনা (২৮), ঝরনার দুই সন্তান জান্নাত (৬) ও জাকারিয়া (২)। ঘটনাস্থলেই তাঁদের মৃ’ত্যু হয়েছে। শুধু বেঁচে গেছেন হৃদয় ও রিয়া। তাঁদের গু’রুত’র অ’বস্থায় হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। ঘটনাস্থলে উপস্থিত স্বজনেরা জানান, গত শনিবার হৃদয় ও রিয়ার বিয়ে হয়। তাঁরা আজ ছেলের বাড়ি থেকে মেয়ের বাড়ি যাচ্ছিলেন।

হৃদয়ের পরিবার দক্ষিণখান থানার কাওলা আফিল মেম্বারের বাড়ির ভা’ড়াটিয়া। আর কনে রিয়া মনির বাড়ি আশুলিয়ার খে’জুরবাগানে আ’সরাফউদ্দিন চেয়ারম্যান বাড়ি এলাকায়। হৃদয়ের চাচাতো ভাই রাকিব (১৯) বলেন, বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে তাঁরা দু’র্ঘটনা’র খবর পান। কিন্তু এতো সময় পরও গাড়ি থেকে ম’রদেহগুলো বের করতে পারেননি উ’দ্ধারকারীরা।

ভেতরে যদি কেউ বেঁচে থেকেও থাকেন তাহলে এতোক্ষণে মা’রা গেছেন। রাকিব ক্ষো’ভ প্রকাশ করে বলেন, ‘সরকার কীভাবে এভাবে অ’ব্যবস্থাপনার মধ্যে কাজ করছে? আমরা কার কাছে বি’চার দিব! আমাদের অন্তত লা’শগুলো বের করে দিক। কিন্তু এখানে তো কোনো উন্নত য’ন্ত্রপাতি নেই।’ দুর্ঘটনাস্থলে স্বজনেরা আসছেন।

তাঁদের আহাজারিতে বাতাস ভা’রী হয়ে উঠছে। ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা লিভার দিয়ে গার্ডার উঁচুর করে তুলে গাড়ি বের করার চেষ্টা করছেন। তবে দুই ঘণ্টার বেশি সময় ধরে চেষ্টায়ও গার্ডার সরেনি। এখন ক্রেন আনার চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে ফায়ার সার্ভিস।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2022 Jonotaralo
Design BY NewsTheme