প্রথম স্বামীর সঙ্গে মোবাইলে কথা বলতেন শিক্ষিকা, বহুবার নিষেধ করেছেন মামুন

প্রথম স্বামীর সঙ্গে মোবাইলে কথা বলতেন শিক্ষিকা, বহুবার নিষেধ করেছেন মামুন

প্রথম স্বামীর সঙ্গে শি’ক্ষিকা খায়রুন নাহার (৪০) মো’বাইলে কথা বলতেন। এ বিষয়ে দ্বিতীয় স্বা’মী মামুন (২২) বহু’বার নি’ষেধ করেছেন। কথা না শোনায় উভয়ের মধ্যে দ্ব’ন্দ্ব দেখা দেয়। এ নিয়ে শনিবার (১৩ আগস্ট) স্ত্রীর সঙ্গে কথা কা’টাকা’টিও হয় মা’মুনের।

রোববার (১৪ আগস্ট) স’কালে আ’টক মামুনকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের পর এসব তথ্য জানায় পুলিশ। এ বি’ষয়ে সদর সার্কেলের অতি’রিক্ত পুলিশ সুপার মহসীন আলী জানান, খবর পেয়ে সি’আইডির একটি দল রাজশাহী থেকে রওনা দিয়েছে। তারা ম’রদে’হের সু’রতহা’ল প্র’তিবেদন তৈরি করে ময়’নাতদ’ন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতালে পাঠাবে।

সকালে নাটোর শহরের বালারিপাড়া এলাকার হাজি নান্নু মোল্লা ম্যানশনের চার তলার একটি ফ্ল্যাটে সামাজিক যোগা’যোগমাধ্যম ফে’সবুকে প্রে’মের সম্প’র্কের পর ছাত্রের সঙ্গে বিবাহব’ন্ধনে আব’দ্ধ হওয়া ওই কলেজ শিক্ষিকার ম’রদেহ পাওয়া যায়। ওই বাসায় ভাড়ায় থাকতেন তিনি।

খায়রুন নাহার নাটোরের গুরু’দাসপুর উপ’জেলার খুবজীপুর এম হক ডিগ্রি কলেজের সহকারী অধ্যাপক ছিলেন। এর আগে শনিবার (১৩ আগস্ট) দিবাগত রাতে গ’লায় ফাঁ’স নিয়ে শিক্ষিকা খায়রুন না’হার আ’ত্মহ’ত্যা’ করেছেন বলে দা’বি করেন মামুন। পুলিশ সূত্রে জানা যায়, রাত ৩টার দিকে মামু’ন প্রতিবে’শীদের ডেকে এনে বলেন, তার স্ত্রী খায়রুন নাহার গ’লায় ফাঁ’স নিয়ে আ’ত্মহ’ত্যা’ ক’রেছেন।

প্রতিবেশীরা তার ঘরে গিয়ে দেখতে পান খায়রুনের নিথর দে’হ ঘরের মেঝেতে শো’য়ানো। এতে তা’দের স’ন্দেহ হলে মামুনকে আ’টকে রেখে পুলিশে খবর দেন তারা। নাটোর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)-এর পরিদর্শক শাহাদাত হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত ক’রে বলেন, লা’শের সুরতহা’ল প্রতিবেদন তৈরি করা হচ্ছে। এছাড়া মামুনকে আ’টক করা হয়েছে। জানা যায়, উপজেলার খুবজীপুর এম হক ডিগ্রি কলেজের সহ’কারী অধ্যাপক খায়’রুন না’হার প্রথমে বিয়ে করেছিলেন রাজশাহীর বা’ঘা উপজেলায়।

প্রথম স্বামীর ঘরে এক সন্তানও ছিল। পারি’বারিক কল’হে সংসার বেশিদিন টি’কিয়ে রাখতে পারেননি। তারপর কে’টে যায় অনে’ক দিন। একপর্যায়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে (ফেসবুকে) পরিচয় হয় ২২ বছ’রের যু’বক মামুনের স’ঙ্গে। মামুনের বাড়ি একই উপজেলার ধারাবারিষা ইউ’নিয়নের পাটপাড়া গ্রামে। নাটোর এন এস সরকারি কলেজের ডিগ্রি দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2022 Jonotaralo
Design BY NewsTheme