Breaking News
Home / প্রবাস / সিঙ্গাপুর যেভাবে যানজটমুক্ত

সিঙ্গাপুর যেভাবে যানজটমুক্ত

বিশুদ্ধ অক্সিজেনে ভরপুর। এক ‘অরণ্য নগরী’। নাগরিক আরামের সঙ্গে কোনো আপস থাক’বে না যে শহরে, থাকবে না যানজট এমন একটা শহর ঢাকাবাসীর স্বপ্নেও আসে না হয়তো, এমনও কি নগরী হয়? হয়, দেশটির নাম সিঙ্গাপুর। ক্ষুদে একটা দ্বীপ’দেশ সিঙ্গাপুর, বলা যায় শূন্য থেকে অসাধারণ উন্নতি ও সমৃদ্ধি অর্জন করেছে।

সুশাসন, দক্ষতা ও শৃঙ্খলার জন্য দেশটি অতি প্রশংসিত। টিকে থাকতে হলে অসাধারণত্ব অ’র্জন করতে হবে, অন্যদের থেকেও হতে হবে ব্যতিক্রমী। আর এই ব্যতিক্রম হয়ে বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে পৃথিবীর অন্যতম ধনী দেশ সিঙ্গাপুর। অথচ মালয়েশিয়া ফে’ডারেশন থেকে বহিষ্কৃত হওয়ার পর দেশটার অস্তিত্ব রক্ষা কিন্তু অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিল।

উন্নয়নশীল দেশের নগরসমূ’হে যানজট একটি তীব্র সমস্যা, বিশেষ করে অর্থনীতিতে এর প্র’ভাব অত্যন্ত নে’তিবাচক। যানজটের ফলে ইউরোপে বছরে ২০০ বিলিয়ন ইউরো, যুক্তরাষ্ট্রে ১০০ বি’লিয়ন ডলার নষ্ট হচ্ছে। বিশ্বব্যাংকের তথ্যমতে, যানজটের কারণে রাজধানী ঢা’কায় প্রতি’দিন ৩২ লাখ কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে। বাংলাদেশের অর্থনীতিতে এর ক্ষতির পরি’মাণ বছরে প্রায় ১১ দশমিক ৪ বিলিয়ন ডলার, যা দেশের মোট জিডিপির ৭ শতাং’শের সমান। বলার অপেক্ষা রাখে না, আর্থিক ক্ষতির পাশাপাশি সমাজ ও পরিবে’শের ওপরও যানজট বিরূপ প্রভাব ফেলে।

তথ্য বলছে যানজটের কা’রণে গা’ড়ি আটকে থেকে বছরে গড়ে ৫৪ ঘণ্টা সময় নষ্ট হয়। এরফলে পুরো জীবনকালে ৩০০০ হা’জার ঘণ্টা সময় নষ্ট হয় একদম কিছু না করে। যানজটে মানসিক উদ্বিগ্ন’তা বেড়ে যায় অনেকাংশে। তবে কি এর সমাধান নেই, নিশ্চয় আছে। উদাহরণ হিসেবে বলা ‘যায় সিঙ্গাপুর, পৃথিবীর অন্যতম ধনী এই দেশের ট্রাফিক ব্যবস্থা খুবই উ’ন্নত। তাদের সমাধানের পথটাও খুব সহজ। তারা রাস্তায় খুব বেশি ব্য’ক্তিগত গাড়ি রাখে না। তা’র মানে কি তারা গাড়িতে যাতায়াত করে না? অবশ্যই করে, কিন্তু সে’টা গণপরিবহনে। কি, অবাক লাগছে?

লন্ডনের পরামর্শ সংস্থা ক্রে’ডোর এক গবেষণায় বলা হয়েছে, গণপরিবহন ব্যবস্থায় বিশ্বের সবচেয়ে সাশ্রয়ী এবং সুবিধার দেশের মধ্য একটি সিঙ্গাপুর। তাদের মোট গাড়ির সংখ্যা ৯ লাখ ৬৭ হাজা’র। এরমানে হলো সেখানে ব্যক্তিগত এবং নতুন গাড়ি কেনা খুব সহজ নয়। সেখানে একটি গাড়ি কিনতে যুক্তরাষ্ট্রের চেয়ে চারগুণ বেশি অর্থের প্রয়োজন হয়। সিঙ্গা’পুরের ট্রান্সপোর্ট অথরিটি এলটিএ ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি থেকে সিঙ্গাপুরে ব্যক্তিগত গাড়ির ব্যবহার শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনার পরিকল্পনা করে। বিপরীতে রাস্তায় গণপ’রিবহনের সংখ্যা বাড়ানোর উদ্যোগ নেয়। যেহেতু নতুন করে সে খাতে আর জমি বাড়ানোর সুযোগ নেই। তাই ব্যক্তিগত গাড়ি ক্রয়ে কঠোর নিয়মের বেড়াজালে আটকে দেয় দেশটি। তাদের যানজট আটকানোর পদ্ধতিটি অভিনব এবং দারুণ এবং তার সুফলও দেশটি পাচ্ছে।

সিঙ্গাপুরের ট্রান্সপোর্ট অথরিটি এলটিএ তথ্যানুসারে সিঙ্গাপুরের স্থলভূমির মোট আয়তন ৬৯৯ বর্গকিলোমিটার এবং পুরো দেশটির রাস্তার জ’ন্য বরাদ্দ ১২ শতাংশ জমি। তাই তারা নিয়মের দিকেই কঠোর এবং অভিনব পদ্ধতি গ্রহণ করে সেটিকে আয়ত্বে রেখেছে। অপরদিকে সিআইএ ওয়ার্ল্ড ফ্যাক্টবুক ২০২১ অ’নুসারে বাংলাদেশের মোট ভূখণ্ড ১ লাখ ৪৮ হাজার ৪৬০ বর্গকিলোমিটার। যার মধ্যে ঢাকা শহরের মোট আয়তনই ৩০৬ বর্গকিলোমিটার। আর সেই ঢাকার জন্য বরাদ্দ কিন্তু ৭ শতাংশ জমি। তাহলে বাংলাদেশের যানজট কমাতে এমন কিছু কঠিন নিয়ম আর সহজ ও অভিনব পদক্ষেপ কি হতে পারে আশাব্যঞ্জক কোনো বিষয়?

About JA

Check Also

মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে বিশেষ অভিযানে ৬ বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

প্রবাসীদের রে’মিট্যান্স হুন্ডির মাধ্যমে দেশে পা’চার করে- এরকম একটি বাংলাদেশি সিন্ডিকেট চক্রকে আটক করেছে মালয়েশিয়ার …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *