কুয়েতে এক লিটার পেট্রোল ২৩ টাকা, অকটেন ২৯

কুয়েতে এক লিটার পেট্রোল ২৩ টাকা, অকটেন ২৯

বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দে’শে জ্বালানি তেলের অস্বা’ভাবিক মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে যখন হৈচৈ, ঠিক তখন মধ্যপ্রাচ্যের দেশ কুয়েতে তেলের দাম র’য়েছে অপরি’বর্তিত। শুধু তাই নয়, গেল সপ্তাহের তু’লনায় ব্যারেল প্রতি মূল্য কি’ছুটা কমে এসেছে বলেও জানিয়েছে কুয়েত পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন।

বাংলাদেশসহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জ্বালানি তেলের মূল্য বাড়লেও এর ঠিক উল্টো চিত্র মধ্য’প্রাচ্যের দেশ কুয়েতে। বিশ্ব বাজারে তে’লের মূ’ল্যবৃদ্ধি কিংবা দরপতন কোনটারই তেমন একটা প্রভাব নেই দেশটিতে। আর এতে খুশি প্রবাসী বাংলাদেশিরা। কুয়েতে বর্তমানে কে’রোসিন ও ডিজেল প্রতি লিটার বি’ক্রি হচ্ছে বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩২ টাকা, অকটেন প্রতি লিটার ২৯ টাকা এবং পেট্রোল প্রতি লিটার ২৩ টাকায়।

তেল গবেষণায় বিশেষায়িত সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, জ্বালানি তেল রিজার্ভে বিশ্বে নবম স্থানে কুয়েত। শুধু তাই নয়, কুয়েত পেট্রো’লিয়াম কর্পোরেশন – কেপিসি জানিয়েছে, গেল সপ্তাহের তুলনায় দেশটিতে জ্বালানি তেলের মূল্য ব্যারেল প্রতি সাড়ে তিন ডলার কমে ১০৮ ডলারে নেমে এসেছে।

বিশ্ববাজারে গেল বেশ কয়েক মাস নিম্নমুখী জ্বালানি তেলের দাম। তবে চীন ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কিছু ইতিবাচক অর্থনৈতিক তথ্যা’দি প্রকাশ্যে আসার পর সোমবার (৮ আগস্ট) তেলের দাম বেড়ে যায়।

ব্রেন্ট ক্রুডের দাম ৮১ সেন্ট বা শূন্য দশমিক ৯ শতাংশ বেড়ে ব্যারেল প্রতি ৯৫ দশমিক ৭৩ ডলারে উঠে যায়। এছাড়া ইউএস ও’য়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট ক্রুডের দর ৭৫ সেন্ট বা শূন্য দশমিক ৮ শতাংশ বেড়ে ব্যারেল প্রতি ৮৯ দশমিক ৭৬ ডলারে পৌঁছে।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) জ্বালানি তেলের শীর্ষ ভোক্তা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জুলাই মাসে চাকরির বাজারের অপ্রত্যাশিত প্রবৃদ্ধির খবর প্রকাশ করেছে। এর পাশাপাশি রোববার (৭ আগস্ট) চীনও প্রত্যাশার তুলনায় রফতানি দ্রুত বা’ড়ার খবর দিয়ে বিশ্বকে তাক লাগিয়েছে। যার প্রভাব পড়েছে জ্বালানি তে’লের বাজারে।

তবে দিন গড়াতেই আবার কমেছে অপরিশোধিত তেলের দাম। ব্রেন্ট ক্রুডের তাস ৫১ সেন্ট বা শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ কমে ব্যারে’ল প্রতি ৯৪ দশমিক ৪১ ডলারে নেমে যায়। আর ইউএস ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট ক্রুড ৪৩ সেন্ট বা শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ কমে প্রতি ব্যারেল ৮৮ দ’শমিক ৫৮ ড’লারে নেমে আসে।

এর আগে ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেন-রাশিয়া সংঘাত শুরুর পর ব্রেন্ট ক্রুডের দাম গত সপ্তাহে সর্বনিম্ন পর্যায়ে নেমে যায়। এ সময়ে অপরিশোধিত তেলের দাম ১৩ দশমিক ৭ শতাংশ কমে যায়। ২০২০ সালের এপ্রিলের পর এটিই সবচেয়ে বড় সাপ্তাহিক ড্রপ। সে সময়ে ইউএস ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট ক্রুডের দর এক সপ্তাহে ৯ দশমিক ৭ শতাংশ কমে যায়।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published.




© All rights reserved © 2022 Jonotaralo
Design BY NewsTheme